বাউল মন ও ছবি

Posted: জুন 10, 2018 in ছন্দের কারিকুরি

আয়না’র সামনে দাঁড়িয়ে নিজেই নিজেকে মুখ ভ্যাংচালে বেশ আমোদ পাওয়া যায়। এছাড়া, মুখভর্তি জল নিয়ে টিপ করে পাশের বাড়ি’র দেওয়ালে বা টিকটিকি’র গায়ে, এসব-ও আমি করে থাকি। একটা প্রশ্ন মাঝে মাঝেই মনে হয়, আমার মাথায় ছিট্‌ আছে কিনা :/ লোকে মুখের উপর বলেনা, ভয় পায় হয়ত, যদি কামড়ে দিই, কিন্তু আমার কেমন সন্দেহ হয়, মনে মনে ভাবে। একমাত্র, পুত্র চরম বিশ্বাসঘাতকে’র মত মাঝেই মাঝেই বলে “পাগল না কী!” এই ক’দিন আগে যে ভয়ানক ঝড় হল, সেদিন আমি হাতে ছাতা এবং পকেটে পয়সা থাকা সত্ত্বে-ও ভিজে ভিজে, খানিক ডালপালা কুড়িয়ে বাড়ি ফিরলাম, সেদিন পতিদেব-ও আমি উপুড়চুপুড় ভিজে ঘরে ঢোকামাত্র-ই “পাগ…” অবধি বলে, তারপর আমার জ্বলন্ত চক্ষুযুগল দেখে, সামলে নিয়েছিলেন। এই ইয়েদের কে বোঝাবে যে বিষ্টি গায়ে মাখতে কী ভাল যে লাগে! বাড়িতে এসে একটু গরম জল দিয়ে চান করে নিলে-ই আর সর্দিকাশির ভয় নেই O:)

আরেকটা ব্যাপার আছে; আমি, শুকনো ডালপালা, পাতা, কুটি কুটি ছেত্‌রে যাওয়া ফুল— এসবের শুধু ছবি তুলি তাই না, ঘরে এনে জমিয়ে-ও রাখি। এর ফলে, রাস্তা’র র‍্যান্ডম লোকজন-ও আমার দিকে মাঝে মাঝে খুব সন্দেহের চোখে তাকায় 😦  একবার একটা জংলা মতন জায়গায় দাঁড়িয়ে ভর-দুপুরবেলায় শুকনো পাতা’র ছবি তুলছিলাম, একটা আপদ রামছাগল (সত্যিকারের চারপেয়ে, দুপেয়ে না) কোত্থেকে এসে প্রায় গুঁতিয়ে দিচ্ছিল 😡 ব্যাটা ওই শুকনো পাতা চিবাবে! সাধে কী বলে, ছাগলে কী না খায়।

এই ব্লগে আমি ছবি-টবি বিশেষ দিই না, এবার কয়েকটা ছবি এখানে রইল…

1-shanti 317

বটফল

1-shanti 360

পাতা যখন ফুল!

1-pedong 007

শুকনো পাতা’র উজ্জ্বল রঙ

1-014

বাঁশে’র গায়ে গজিয়ে ওঠা ছত্রাক

1-033

কিছুমিছু

 

মন্তব্য
  1. Jyotirmoy Sarkar বলেছেন:

    ছোট্টর মধ্যে খুবিই আকর্ষণীয় লেখা, বৃষ্টিতে ভেজা আমার একটা হবি বলতে পারো , এক ঘণ্টা দু ঘণ্টা করে বৃষ্টির মধ্যে ভিজে ভিজে ঘুরে বেরানোর মজাই আলাদা ।
    ছবিগুলো দারুন তুলেছো ।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.